কিডনির যত্ন ঠিকমতো  নিচ্ছেন তো ?

 

শরীরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হলো কিডনি। প্রতিদিন কিডনজনিত কারণে বিশ্বব্যাপী প্রাণ হারাচ্ছেন অনেকেই। কিডনির রোগগুলো খুব নীরবে শরীরের ক্ষতি করে। পরিস্থিতি খুব জটিল না হওয়ার আগে লক্ষণগুলোও ভালোভাবে প্রকাশ পায় না। 

নিয়মিত প্রয়োজন অনুযায়ী পানি পান করা এবং স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার মাধ্যমে কিডনি ভালো রাখা যায়। এর পাশাপাশি কিডনির যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু বাড়তি বিষয়ও খেয়াল রাখা উচিত- 

কার্বোহাইড্রেটও খেতে হবে 

ওজন কমাতে গিয়ে অনেকেই কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার খাওয়া একেবারে ছেড়ে দেন। এতে কিডনির ক্ষতি হয়। ডায়েটেশিয়ানদের মতে, খাবারে মোট ক্যালোরির ৬০-৬৫ শতাংশ যেন কার্বোহাইড্রেট থেকে আসে সেদিকে খেয়াল রাখুন। ছোট এক বাটি ভাত বা দুই তিনটে রুটি কিংবা চিড়া-মুড়ি রাখুন খাদ্যতালিকায়। সঙ্গে রাখতে পারেন দুই তিন রকম ফল ও শাক-সবজি। 

লবণ খাওয়া কমান 

লবণ যত খাবেন ততই মঙ্গল। তবে কতটা কমাবেন এ নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে থাকেন অনেকেই। চিকিৎসকদের মতে, এখন যা লবণ খাচ্ছেন তার চেয়ে ২ গ্রাম কম খান। ধীরে ধীরে এই পরিমাণ কমান। দিনে এক চা চামচের বেশি লবণ খাওয়া উচিত নয়। 

প্রক্রিয়াজাত খাবার ও প্যাকেটবন্দি খাবারে লবণের পরিমাণ বেশি থাকে। এ ধরনের খাবার এড়িয়ে চলুন। লবণ খাওয়া কমানোর মাধ্যমে কিডনির রোগের আশঙ্কা ২০ শতাংশ কমানো সম্ভব। 

জাঙ্ক ফুড খাওয়া বাদ দিন

সুস্থ থাকতে চাইলে খাবার তালিকা থেকে জাঙ্ক ফুড খাওয়া বাদ দিন। আর যদি খেতেই হয় তবে সপ্তাহে এক বা দুই দিনের বেশি কিছুতেই নয়। 

পানি পান করুন পরিমাণমতো

কিডনি ভালো রাখতে অবশ্যই পরিমাণমতো পানি পান করতে হবে। কম পানি যেমন কিডনির সমস্যা সৃষ্টি করে, তেমনি শরীরের তুলনায় বেশি পানি পান করলে কিডনিতে চাপ পড়ে এবং ক্ষতি হয়। 

কিছু ওষুধ রয়েছে যা কিডনির ওপর চাপ সৃষ্টি করে। এমন ওষুধগুলো চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে গ্রহণ করুন। নেশা জাতীয় খাবার পরিহার করুন। পাশাপাশি রাত জাগা, কাজের চাপ, বিশ্রামের অভাব ইত্যাদিও কিডনি সমস্যার কারণ হতে পারে।